Category Archives:

মোরা গৌর স্বয়ংকার শিক্ষায় বলি

মোরা গৌর স্বয়ংকার শিক্ষায় বলি।
গৌর বলে হরি বলতে শুনতে পাই তো সকলি।।

শুধাই যদি কোনো জনে
বলে আমি নই চৈতন্যে
সে বাক্য হলে অমান্য
কই থাকে গুরু প্রণালি।।

গুরু বাক্য লঙ্ঘাইলে
আন্দাজি পণ্ডিত হইলে
নিকাশী কাশ বাধবে গলে
জেনে শুনে কেন ভুলি।।

চৈতন্য চেতন সদাই
জন্মমৃত্যু তার কিছুই নাই
লালন ভাবে সে মন কোথায়
কেনে বাধাই গোলমালি।।

Posted from WordPress for Android

Advertisements

মোকামে একটি রূপের বাতি জ্বলছে সদায়

মোকামে একটি রূপের বাতি জ্বলছে সদায়।
নাহি তেল তার নাহি তুলা আজগুবি হয়েছে উদয়।।

মোকামের মধ্যে মোকাম
স্বর্ণশিখর বলি যার নাম
বাতির লণ্ঠন সদাই মুদাম
ত্রিভুবনে কিরণ ধায়।।

দিবানিশি আট প্রহরে
এক রূপ সে চার রূপ ধরে
বর্ত থাকতে দেখলি না রে
ঘুরে মলি বেদের ধোঁকায়।।

যে জন জানে সেই বাতির খবর
ঘুচেছে তার নয়নের ঘোর
সিরাজ সাই কয় লালন রে তোর
দৃষ্টি হয় না মনের দ্বিধায়।।

Posted from WordPress for Android


মেরে সাইর আজব কুদরতি তা কে বুঝতে পারে

মেরে সাইর আজব কুদরতি তা কে বুঝতে পারে।
আপনি রাজা আপনি প্রজা ভবের পরে।।

আহাদ নাম লুকায় হাদি
রূপটি ধরে আহাম্মদি
এ ভেদ না জেনে বান্দা
পড়বি ফ্যারে।।

বাজিকর পুতুল নাচায়
আপন তারে কথা কওয়ায়
জীবদেহে সাই চালায় ফেরায়
সেই প্রকারে।।

আপনারে চিনবে যেজন
ভেদের ঘরে পাবে সে ধন
সিরাজ সাই কয় লালন
কী আর বেড়াও ধুড়ে।।

Posted from WordPress for Android


মূল হারালাম লাভ করতে এসে

মূল হারালাম লাভ করতে এসে
দিয়ে ভাঙ্গা নায় বোঝাই ঠেসে।
জন্মভাঙ্গা ডিঙ্গে আমার
বল ফুরালো জল ছেচে।।

গলুই ভাঙ্গা জলুই খসা
বরাবরি এমনি দশা
গাবকালিতে যায় না কসা
কী করি তার নাই দিশে।।

কত ছুতোর ডেকে আনি
সারতে এই ভাঙ্গা তরণি
এক জাগায় খোঁচ গড়তে অমনি
আর এক জাগায় যায় ফেসে।।

যে ছুতোরের নৌকা গঠন
তারে যদি পেতাম এখন
লালন বলে মনের মতন
সারতাম নৌকা তার কাছে।।

Posted from WordPress for Android


মুরশিদের ঠাঁই নে না রে তার ভেদ বুঝে

মুরশিদের ঠাঁই নে না রে তার ভেদ বুঝে।
এ দুনিয়ায় ছিনায় ছিনায় কী ভেদ নবি বিলায়েছে।।

ছিনার ভেদ ছিনায় ছিনায়
ছফিনার ভেদ ছফিনায়
যে পথে যার মন হল ভাই
সেই সেভাবে দাঁড়িয়েছে।।

কুতর্ক আর কু-স্বভাবি
তারে ভেদ বলে নাই নবি
ভেদের ঘরে দিয়ে চাবি
শরামতে বুঝিয়েছে।।

নেকতন বান্দারা যত
ভেদ পেলে আউলিয়া হতো
নাদানেরা শূল চাঁচিত
মনসুর তার সাবুদ আছে।।

তফসির হোসাইনি যার নাম
তাই ধুড়ে মসনবি কালাম
ভেদ-ইশারায় লিখা তামাম
লালন বলে নাই নিজে।।

Posted from WordPress for Android


মুরশিদকে মানিলে খোদার মান্য হয়

মুরশিদকে মানিলে খোদার মান্য হয়।
সন্দ যদি হয় কাহারো কোরান দেখলে মিটে যায়।।

দেখ বেমুরিদ যত
শয়তানের অনুগত
এবাদত বন্দেগি তার তো
সই দেবে না দয়াময়।।

মুরশিদের মেহের হলে
খোদার মেহের তারে বলে
হেন মুরশিদ না ভজিলে
তার কি আর আছে উপায়।।

মুরশিদ পথের দাঁড়া
যাবে কোথায় তারে ছাড়া
সিরাজ সাই কয় লালন গোড়া
মুরশিদ ভজলে জানা যায়।।

Posted from WordPress for Android


মুরশিদ বিনে কী ধন আর আছে রে মন এ জগতে

মুরশিদ বিনে কী ধন আর আছে রে মন এ জগতে।
যে নাম স্মরণে মন রে, তাপিত অঙ্গ শীতল করে
ভববন্ধন জ্বালা যায় গো দুরে জপ ঐ নাম দিবারাতে।।

মুরশিদের চরণের সুধা, পান করিলে যাবে ক্ষুধা
করো না মন দেলে দ্বিধা, যেহি মুরশিদ সেহি খোদা
ভজ ওলিয়েম মুরশিদা আয়াত লেখা কোরানেতে।।

আপনি আল্লা আপনি নবি, আপনি হন আদম সফি
অনন্ত রূপ করে ধারণ, কে বোঝে সাইর লীলার করণ
নিরাকারে হাকিম নিরঞ্জন মুরশিদ রূপ ওই ভজন পথে।।

কুল্লে সাইন মোহিত আর, আল্লা কুল্লে সাইন কাদির
পড় কালাম নিহাজ কর তবে সে ভেদ জানতে পার
কেন লালন ফাঁকে ফের ফকির নাম পাড়াও মিছে।।

Posted from WordPress for Android