Category Archives:

ভজা উচিৎ বটে ছড়ার হাঁড়ি

ভজা উচিৎ বটে ছড়ার হাঁড়ি।
যাতে শুদ্ধ করে ঠাকুরবাড়ি।।

চণ্ডীমণ্ডপ আর
হেঁসেলঘর
কেবল শুদ্ধ করে
ছড়ার নূড়ি।।

ছড়ার হাঁড়ির জল
ক্ষণেক পরশ ফল
ক্ষণেক ছুঁস নে বলে
কর চেগুড়ি।।

ছড়ার হাঁড়ির মত
আছে আর এক তত্ত্ব
লালন বলে জাগাও
বুদ্ধির নাড়ি।।

Posted from WordPress for Android


ভজ রে জেনে শুনে

ভজ রে জেনে শুনে।
নবি কলমা কলেন্দা আলি হালদাতা
ফাতেমা দাতা কি ধন দানে
নিলে ফতেমার স্মরণ, ফতে হয় করণ
আছে ফরমান সাঁইর জবানে।।

সৃষ্টিকর্তা সৃষ্টি করলেন সবারি
যুগে যুগে মাতা হন যোগেশ্বরী
সুযোগ না বুঝে, কুযোগে মজে
মারা গেল এ জীব ঘোর তুফানে।।

শুনেছি মা তুমি অবিম্বধারী
বেদান্তের উপর গম্ভু তাহারি
তারে চেনা  হ’ল ভার, ও রে মন আমার
ভুলে র’লি ভবের ভাব-ভূষণে।।

সাড়ে সাত পান্তি পথের দাঁড়া
আদ্য পান্তি তার আদ্য মূল গোড়া
সিরাজ সাঁইর চরণ ভুলে রে মন
অঘাটে মারা যাচ্ছ কেনে।।

Posted from WordPress for Android


ভজনের নিগূঢ় কথা যাতে আছে

ভজনের নিগূঢ় কথা যাতে আছে।
ব্রহ্মার বেদ-ছাড়া ভেদ বিধান সে যে।।

চার বেদে দিক নিরূপণ
অষ্ট বেদ বস্তুর কারণ
রসিক হইলে জানে সে জন
আর ঠাঁই মিছে।।

অপরূপ সেই বেদ দেখি
পাঠক তার অষ্ট সখি
ষড়তত্ত্ব অনুরাগি
সে জেনেছে।।

মুক্তিরাগ নাস্তি কর
ব্যক্তিপদ শিরে ধর
শক্তিসার তন্ত্র পড়
ঘোর যাক ঘুচে।।

সাঁইর ভজন হেতু শূন্য
ঐ বেদে করি গণ্য
লালন কয় ধন্য ধন্য
যে তাই খোঁজে।।

Posted from WordPress for Android


ভজ রে আনন্দের গৌরাঙ্গ

ভজ রে আনন্দের গৌরাঙ্গ।
যদি তরিতে বাসনা থাকে ধর রে মন সাধুর সঙ্গ।।

সাধুর গুণ যায় না বলা
শুদ্ধ চিত্ত অন্তর খোলা
সাধুর দরশনে যায় মনের ময়লা
পরশে প্রেমতরঙ্গ।।

সাধুজনার প্রেমহিল্লোলে
কত মানিক-মুক্তা ফলে
সাধু যারে কৃপা করে
প্রেমময়ে দেয় প্রেমঅঙ্গ।।

একরসে হয় প্রতিবাদী
একরসে ঘুরছে নদী
একরসে নৃত্য করে
নিত্যরসের গৌরাঙ্গ।।

সাধুর সঙ্গগুণে রঙ ধরবে
পূর্ব শোভার দূরে যাবে
লালন বলে পাইবে প্রাণের গোবিন্দ
করবে সতসঙ্গ।।

Posted from WordPress for Android


ভজ মুরশিদের কদম এই বেলা

ভজ মুরশিদের কদম এই বেলা।
চার পিয়ালা হৃদ্‍-কমলা ক্রমে হবে উজ্জ্বলা।।

নবিজির খানদানেতে
পিয়ালা চারিমতে
জেনে নাও দিন থাকিতে
ও রে আমার মনভোলা।।

কোথা রে আবহায়াত নদী
ধারা বয় নিরবধি
সে ধারা ধরবি যদি
দেখবি রে অটলের খেলা।।

এপারে কে আনিল
ওপার কে নেবে বলো
লালন কয় তারে ভোল
করে অবহেলা।।

Posted from WordPress for Android


ভক্তের দ্বারে বাঁধা আছেন সাই

ভক্তের দ্বারে বাঁধা আছেন সাই।
হিন্দু কি যবন বলে জাতের বিচার নাই।।

ভক্ত কুবির জেতে জোলা
প্রেমভক্তিতে মাতোয়ালা
ধরেছে সে-ই ব্রজের কালা
দিয়ে সর্বস্ব ধন তাই।।

রামদাস মুচি ভবের পরে
ভক্তির বল সদাই করে
সেবায় স্বর্গে ঘণ্টা পরে
সাধুর মুখে শুনতে পাই।।

এক চাঁদে জগৎ আলো
এক বীজে সব জন্ম হলো
ফকির লালন বলে মিছে কল’
আমি ভবে দেখতে পাই।।