Monthly Archives: মার্চ 2014

বড় অকৈতব কথা রে ওরে ছিদাম সখা

বড় অকৈতব কথা রে ওরে ছিদাম সখা।
ষড়-ঐশ্বর্য ত্যজ্য করে ধূলোয় অঙ্গ মাখা।।

ব্রজপুরে নন্দের ঘরে
ছিলাম রে ভাই কারাগারে
তাইতে আমি এলাম ছেড়ে
নদীয়ায় এসে দেখা।।

অগুরু চন্দন এখন
সব দিয়েছি রাধার কারণ
এই অঙ্গে সেই অঙ্গের জীবন
আছে চন্দ্রমুখা।।

রাধার প্রেমের ঋণের কাঙ্গাল
বৃন্দাবন ত্যাগ করে নন্দলাল
মনের দুঃখ বলছে লালন
আমার কেবল রফা।।

Posted from WordPress for Android


বড় নিগুমেতে আছেন গো সাঁই

বড় নিগুমেতে আছেন গো সাঁই।
যেখানেতে আছে মানুষ সেথা চন্দ্র-সূর্যের বারাম নাই।।

চন্দ্র-সূর্য যে গড়েছে
ডিম্বু রূপে সেই ভেসেছে
একদিনে হিল্লোল এসে
নিরঞ্জনের জন্ম হয়।।

হাওয়াদ্বারি দেল-কুঠরি
মানুষ আছে শূন্য পুরী
শূন্যকারে শূন্য বারি
মানুষ রয় মানুষের ঠাঁই।।

আপ্ততত্ত্ব পরমতত্ত্ব
বৃন্দাবনে নিগূঢ় অর্থ
লালন বলে নিগূঢ় পদার্থ
সেই ধামেতে মানুষ নাই।।

Posted from WordPress for Android


বাঁকির কাগজ মন তোর গেল হুজুরে

বাঁকির কাগজ মন তোর গেল হুজুরে।
কোনদিন যেন আসবে শমন সুখের অন্ত:পুরে।।

যখন ভিটেয় হও বসতি
দিয়েছিলে খোশ-কবলিতি
হরদমে নাম রাখবো স্থিতি
এখন ভুলেছ তারে।।

আইনমাফিক নিরিখ দে না
তাতে কেন তোর ইতরপনা
যাবে রে মন যাবে জানা
জানা যাবে আখেরে।।

সুখ পেলে হও সুখভোলা
দুখ পেলে কেন হও উতলা
লালন কয় সাধনের খেলা
কীসে জুত ধরে।।

Posted from WordPress for Android


বুঝবি রে গৌরপ্রেমের কালে আমার মত প্রাণ কান্দিলে

বুঝবি রে গৌরপ্রেমের কালে আমার মত প্রাণ কান্দিলে।
দেখা দিয়ে গৌর ভাবের শহর আড়ালে লুকালে।।

যেদিনে গৌর হেরেছি
আমাতে কি আমি আছি
কী যেন কী হয়ে গেছি
প্রাণ কাঁদে গৌর বলে।।

তোরা থাক জাত-কুল লয়ে
আমি যাই চাঁদ গৌর বলে
আমার দুঃখ বুঝলি না রে
দেখ এক মরণে না মরিলে।।

চাঁদমুখেতে মধুর হাসি
আমি ঐ রূপ ভালোবাসি
লোকে করে দ্বেষাদ্বেষি
গৌর বলে যাই চলে।।

একা গৌর নয় গৌরাঙ্গ
নয়ন বাঁকা আরো ত্রিভঙ্গ
এমনি তার অঙ্গ গন্ধ
লালন কয় জগৎ মাতালে।।

Posted from WordPress for Android


বনে এসে হারালাম কানাই

বনে এসে হারালাম কানাই।
যেয়ে কী বলবো যশোদারে ভেবে দিশে নাই।।

খেললাম সবে লুকালুকি
আবার হল দেখাদেখি
মোদের কানাই গেল কোন মুল্লুকি
খুঁজে তো নাহি পাই।।

ছিদাম বলে নেব খুঁজে
লুকাবে কোন বন মাঝে
বলাইদাদা বলে বুঝি সে
দেখা দেয় না ভাই।।

সুবল বলে প’লো মনে
বলেছিল একদিনে
কানাই যাবে গুপ্ত বৃন্দাবনে
আজ গেলেন বুঝি তাই।।

খুঁজে খুঁজে হলাম সারা
কোথায় গেলি মনচোরা
আর বুঝি দিবি না ধরা
লালন বলে কী হল হায়।।

Posted from WordPress for Android


বসতবাড়ির ঝগড়া কেজে কিছুই আমার মিটলো না

বসতবাড়ির ঝগড়া কেজে কিছুই আমার মিটলো না।
কার গোয়ালে কে দেয় ধূমা সব দেখি তা-না-না-না।।

ঘরের চোরে ঘর মারে যার
বসতের সুখ হয় কিসে তার
যেমন দেখি ভূতের প্রকার
তেমনি তার বসতখানা।।

দেখেশুনে আপ্তকলহ
বাড়ির কর্তা-ব্যক্তি হত হলো
সাক্ষাতে ধন চুরি গেল
এ লজ্জা তো যাবে না।।

সর্বদা হাকিমের তরে
আর্জি করি বারে বারে
লালন বলে সেও তো মোরে
একবার ফিরে চাইলো না।।

Posted from WordPress for Android


বল রে স্বরূপ কোথায় আমায় সাধের প্যারি

বল রে স্বরূপ কোথায় আমার সাধের প্যারি।
যার ভাবে হয়েছি রে দন্ডধারী।।

কোথা সে নিকুঞ্জবন
কোথা যমুনা উজন
কোথা সেই গোপিনীগণ
আহা মরি।।

রামানন্দের দরশনে
পূর্বভাব উদয় মনে
যাব আমি কাহার সনে
সেই পুরি।।

আর কিরে সেই সঙ্গ পাব
মনের সাধ পুরাইব
পরম আনন্দে রব
ঐ রূপ হেরি।।

শ্রীগৌর ঐ দিন বলে
আকুল হই তিলে তিলে
লালন কয় সেহি নীলে
সুমাধুরী।।

Posted from WordPress for Android