Monthly Archives: অক্টোবর 2013

শহরে ষোলজনা বোম্বেটে

শহরে ষোলজনা বোম্বেটে।
করিয়ে পাগলপারা নিল তারা সব লুটে।।

রাজ্যেশ্বর রাজা যিনি
চোরের শিরোমণি
নালিশ করিব আমি
কোন্‍খানে কার নিকটে।।

পাঁচ জনা ধনী ছিল
তারা সব ফতুর হল
কারবারে ভঙ্গ দিল
কখন যেন যায় উঠে।।

গেল ধন মালনামায়
খালি ঘর দেখি জমায়
লালন কয় খাজনারি দায়
কখন যেন যায় লাটে।।

Posted from WordPress for Android


শচীর কুমার যশোদায় বলে

শচীর কুমার যশোদায় বলে।
মা তোমার ঘরের ছেলে বলে অবহেলায় হারালে।।

রাধার কথা কী বলবো মা
তার গুণের আর নাই সীমা
মুনিঋষি ধ্যানীজ্ঞানী
না পেয়ে চরণকমলে।।

তুমি আমার জন্মের গুরু
রাধা আমার প্রেম কল্পতরু
জয় রাধা নামের গুরু
ঘরে ঘরে নাম মাতালে।।

যার প্রেম সে-ই জানে না
লালন কয় তার উপাসনা
অনন্তর অনন্ত করুণা
আমি বুঝবো কোন ছলে।।

Posted from WordPress for Android


লীলা দেখে লাগে ভয়

লীলা দেখে লাগে ভয়।
নৌকার উপর গঙ্গা বোঝায় ডাঙ্গায় বয়ে যায়।।

ফুল ফুটেছে গঙ্গাজলে
ফল ধরেছে অচিন দলে
ফুল ফলে ঐক্য হলে
তাতে কথা কয়।।

আবহায়াত নাম গঙ্গা সে যে
সংক্ষেপেতে লও হে বুঝে
পলকে পাউড়ি ভাসে
পলকে শুকায়।।

জগৎজোড়া মীন সে গাঙ্গে
খেলছে খেলা আপন রঙ্গে
লালন বলে জল শুকালে
মীন যাবে হাওয়ায়।।

Posted from WordPress for Android


রাসুলের সব খলিফা কয় বিদায়কালে

রাসুলের সব খলিফা কয় বিদায়কালে।
গায়েবি খবর আর কি পাব তুমি রাসুল গেলে।।

মহাপ্যাঁচ আইন তোমার
বুঝে ওঠা সাধ্য বা কার
কী করিতে কী করি আর
সহি না পেলে।।

কোরানের ভিতরে সে তো
মুকাত্তিয়াত হরফ কত
মানে কও তার ভালমত
ফেলো না গোলে।।

আহাদ নামেতে আপি
মিম দিয়ে মিম করে নফি
ইহার মানে কও নবিজি
লালন তাই বলে।।

Posted from WordPress for Android


লণ্ঠনে রূপের বাতি জ্বলছে রে সদাই

লণ্ঠনে রূপের বাতি জ্বলছে রে সদাই।
দেখ না রে মন দেখতে যার বাসনা হৃদয়।।

রতির গিরে ফসকা মারা
শুধু কথার ব্যবসা করা
তার কী হবে রূপ নিহারা
মিছে গোল বাধায়।।

যেদিন বাতি নিভে যাবে
ভাবের শহর আধার হবে
সুখ-পাখি তোর পলাইবে
ছেড়ে সুখালয়।।

সিরাজ সাই বলে রে লালন
স্বরূপে রূপে দিলে নয়ন
তবে হবে রূপ দরশন
পড়িস্‍ নে ধাঁধায়।।

Posted from WordPress for Android


রে মন যে পথে সাইর আসা-যাওয়া

রে মন যে পথে সাইর আসা-যাওয়া।
তাতে নাই মাটি আর হাওয়া।।

আলিপুরে করে কাচারি
তার উপরে নি:শব্দপুরী
জীবের সাধ্য কি
তার উল্‍ পাওয়া।।

নিগুম ঠাঁই সতত থাকে
যথা যে যা করে সব সে দেখে
দেখতে না রে চর্মচোখে
কেউ দেখে না তার কায়া।।

মন যায় মনের উপরে
তবে অধর সাইকে ধরতে পারে
অধীন লালন বিনয় করে
কে জানে তাহা।।

Posted from WordPress for Android


রসের রসিক না হলে কে গো জানতে পায়

রসের রসিক না হলে কে গো জানতে পায়।
কোথা সে অটলরূপ বারাম দেয়।।

শূন্য ভরে শয্যা করে
পাতালপুরে
শয়ন দেয়;
অরসিক বেড়ায় ঘুরে
ঘোর ধাঁধায়।।

মনচোরা চোর সেই যে নাগর
তলে আসে তলে যায় উপর উপর
খুঁজে জীব সবাই;
মাটি ছেড়ে লাফ দিয়ে উঠে
আসমানে গিয়ে হাত বাড়ায়।।

পড়ে সে ফাঁকের ঘরে
শেষ খানায় তলে পরে তলে ধুড়ে
তবে সে ফল প্রাপ্ত হয়;
লালন কয় উচা মনের কার্য নয়।।

Posted from WordPress for Android